শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০৬:৩৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
২১, ২৩ ও ২৫ জুলাইয়ের পরীক্ষা স্থগিত মহেশখালীতে পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার কক্সবাজারে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ,ভাংচুর অনির্দিষ্টকালের জন্য দেশের সকল ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কুতুবদিয়ার মাছ ধরার ট্রলার ডুবি: মাঝিমাল্লা উদ্ধার মহেশখালীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে গ্যারেজ মালিক মামুনের মৃত্যু মাতারবাড়ীতে ৫শ মেগাওয়াটের সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র করবে ইন্দোনেশিয়া “অভিভাবকহীন সন্তানদের থেকে রাষ্ট্রও যেন মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে” উত্তরণ মডেল স্কুল ও কলেজে কিশোর কিশোরীদের দক্ষতা উন্নয়নে স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে জলবায়ু ন্যায্যতা ও লিঙ্গ ভিত্তিক সহিংসতা বিষয়ে সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত রামুতে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নতুন ভবন ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করলেন হুইপ সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠিতে ক্ষুব্ধ পুলিশ কর্মকর্তারা

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৩৬৮ বার পঠিত

রূপালী ডেস্ক।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি চিঠি পেয়ে ক্ষুব্ধ পুলিশ কর্মকর্তারা। জেলায় প্রতিদিন যেসব মামলা বা জিডি হয়, জেলা প্রশাসকদের কাছে তা রোজ জানাতে নির্দেশনা দিয়েছে মন্ত্রনালয়। পুলিশ আইনের আওতায় এই তথ্য দিতে বাধ্য বলেও চিঠিতে বলা হয়। তবে, পুলিশ বলছে, এসব তথ্য আদালতে জানানো হয়। ডিসিদের জানাতে বাধ্য নন তারা। এনিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজী হননি এজিপি। ঘটনার শুরু চারমাস আগে। মাদারীপুর জেলা প্রশাসক, জেলা পুলিশ সুপারের কাছে মৌখিকভাবে পুলিশের রোজকার মামলা-জিডির তথ্য চান। শুধু তাই নয়, গোয়েন্দা ইউনিট এসবি পুলিশের ডেইলি রিপোর্টগুলোও ডিসিকে জানাতে বলেন তিনি। ডিসির সেই দাবি, তাৎক্ষনিক নাকচ করে দেন এসপি। সেই আলোচনা গড়ায় সচিবালয় পর্যন্ত। সবশেষ গত রোববার (২৯ আগস্ট) পুলিশ সদর দপ্তরে একজন উপসচিবের সাক্ষরিত চিঠি পাঠায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়। যাতে বলা হয়, জেলা পুলিশ সুপার নিয়ম মেনে মামলা, জিডি ও দৈনন্দিন রিপোর্ট ডিসি অফিসে না জানানোয়, জেলার আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক রাখা সম্ভব হচ্ছে না। এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন থাকায় তা এসপিদের মানার নির্দেশ দেয় মন্ত্রণালয়। এ নিয়ে বেশ মনোক্ষুন্ন পুলিশ কর্মকর্তারা। বেশ কয়েকজন পুলিশ সুপার যমুনা টেলিভিশনকে জানিয়েছেন মামলার তথ্যাদি নিয়মিত আদালতে জানানো হয়। পাশাপাশি একেবারেই অভ্যন্তরীণ এসবি ডেইলি রিপোর্ট, ডিসিদের জানানোর কোনো বিধান নেই। এ ব্যাপারে পুলিশ সদর দপ্তরের এক অনুষ্ঠানে আইজিপির মন্তব্য জানতে চাইলে, তিনি জানান এটা নিয়ে কথা বললে বিভ্রান্তি তৈরী হতে পারে। পুলিশ মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, ১৯২ নম্বর ধারায় যেভাবে উল্লেখ্য করা হয়েছে তা মোটেও কঠিন কোনো বিষয় না, এটা বুঝতে বিশেষজ্ঞ হওয়ারও দরকার নাই, এটা পড়লেই আপনার বুঝে যাবেন। এটা নিয়ে খামাখা কোনো বিভ্রান্তি তৈরি করতে চাইনা। সাবেক কর্মকর্তারা বলছেন, স্বাধীনতার পর থেকে এরকম নিয়ম-কানুনের প্রচলন নেই। তাই, এইরকম চিঠি প্রশাসন ও পুলিশ সার্ভিসের মধ্যে যাতে সমন্বয়হীনতার কারণ না হয় তা নিয়ে দ্রুত আলোচনায় বসা উচিত। পুলিশের সাবেক অতিরিক্তি আইজিপি মোখলেসুর রহমান বলেন, কেন এরকম একটা সেটেল্ড ইস্যু নিয়ে আবারও চিঠি দিয়েছে তা আমার বোধগম্য না। পুলিশ রিপোর্ট তো প্রেরণ করতে হয়ই, তবে আলাদা করে কোনো কিছু দেয়া হয়েছে বলে আমার মনে হয়না। পুলিশ ডিপার্টমেন্ট মন্ত্রণালয়ের বসে সাথে কথা বলে এই সমস্যার সুরাহা করতে পারেন। পুলিশ সদরে কথা বলে জানা গেছে, শীঘ্রই এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ে একটি ব্যাখ্যা পাঠাবেন কর্মকর্তারা। সুত্র: যমুনা টিভি

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs