শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০৭:২৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
২১, ২৩ ও ২৫ জুলাইয়ের পরীক্ষা স্থগিত মহেশখালীতে পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার কক্সবাজারে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ,ভাংচুর অনির্দিষ্টকালের জন্য দেশের সকল ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কুতুবদিয়ার মাছ ধরার ট্রলার ডুবি: মাঝিমাল্লা উদ্ধার মহেশখালীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে গ্যারেজ মালিক মামুনের মৃত্যু মাতারবাড়ীতে ৫শ মেগাওয়াটের সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র করবে ইন্দোনেশিয়া “অভিভাবকহীন সন্তানদের থেকে রাষ্ট্রও যেন মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে” উত্তরণ মডেল স্কুল ও কলেজে কিশোর কিশোরীদের দক্ষতা উন্নয়নে স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে জলবায়ু ন্যায্যতা ও লিঙ্গ ভিত্তিক সহিংসতা বিষয়ে সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত রামুতে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নতুন ভবন ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করলেন হুইপ সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি

মহেশখালীতে ফাঁদ পেতে নির্বিচারে অর্ধশতাধিক বানর হত্যা

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর, ২০২১
  • ২৭৫ বার পঠিত

কাইছারুল ইসলাম।
মহেশখালীতে ফাঁদ পেতে নির্বিচারে অর্ধশতাধিক বানরকে হত্যা করা হয়েছে। লাউক্ষেত বিনষ্টের অযুহাতে এ বানর গুলোকে হত্যা হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে। উপজেলার বড় মহেশখালী মৌজার ভারিতিল্যা ঘোনা নামক পাহাড়ে ঘটনাটি ঘটেছে।

মঙ্গলবার ( ১২ অক্টোবর) বিকেল ৫টায় ভারিতিল্লা ঘোনার একটি লাউক্ষেতের পাশে বানর গুলোকে মৃত পড়ে থাকতে দেখা যায়। কয়েকটি বানরকে গাছে ঝুঁলিয়ে রাখা হয়। এই ক্ষেতের মালিক দেবাঙ্গা পাড়া গ্রামের জনৈক মোজাফ্ফার মাস্টারের ছেলে বলে প্রাথমিক ভাবে জানা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পাহাড়ি জমিতে কাজ করতে যাওয়ার সময় লাউক্ষেতের পাশে বানর গুলোকে মৃত অবস্থায় দেখতে পায়। বানর গুলো প্রায় সময় লাউ ক্ষেতে নেমে ক্ষেত বিনষ্ট করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ক্ষেতের মালিক দিনের কোন এক সময় বিষ মিশ্রত কলা রেখে যায়। বানর গুলো ঐ কলা খেয়ে মারা যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বনবিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীদের দায়িত্বে অবহেলার কারণে পাহাড়ে বন্যপ্রাণীদের আবাসস্থল হুমকিতে পড়ছে। সবার অগোচরে পাহাড়ী এলাকায় এভাবেই নির্বিচারে বন্যপ্রার্থী হত্যাযজ্ঞ চলছে। তবে বরাবরই এ ব্যাপারে উদাসীন বনবিভাগের লোকজন।

এদিকে পরিবেশবাদী সংগঠন গ্রীন এনভায়রনমেন্ট মুভম্যান্টের মহেশখালী উপজেলার সভাপতি দিনুর আলম জানান, বন্যপ্রাণী হত্যা আইনত অপরাধ। এতে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হয়। এই ন্যাক্কারজনক ঘটনায় যারা জড়িত তাদের আইনের আওতায় আনা হোক।

এই বিষয়ে জানতে মহেশখালী রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক মোঃ সাদেকুল ইসলামের মুঠোফোনে (০১৭৪৪৯৮৫৯৫৩) যোগাযোগ করা হলে তিনি মিটিংয়ে আছেন, পরে ফোন দিবেন বলে কেটে দেন।

অপরদিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাহফুজুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন না ধরায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs