মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৯:০৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কক্সবাজারে ‘মাদক প্রতিরোধে সামাজিক আন্দোলনের গুরুত্ব’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত রামুতে ৮টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অংশগ্রহনে দুর্নীতি বিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতা উদ্বোধন ঢাকায় এসি বিস্ফোরণ: জীবন যুদ্ধে হেরে গেলেন মহেশখালী মাতারবাড়ীর আবদুল মান্নান মহেশখালীতে টমটম চাপায় দিনমজুর রফিক গুরুতর আহত শফি অবৈধ মালামাল নিয়ে দুবাই কারাগারে বন্দি মোরশেদ এ শিরোনামে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিভ্রান্তিমুলক সংবাদের প্রতিবাদ আলোকিত মেধাবিকাশ স্বর্ণপদক বৃত্তি পরীক্ষায় মহেশখালী কে.জি এর শিক্ষার্থী আলিয়া ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি লাভ মিয়ানমারের সীমান্ত এলাকা উখিয়ায় একাধিক অস্থায়ী পশুরহাট! ওয়াটারকিপার অ্যালায়েন্সের নির্বাহী পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হলেন শরীফ জামিল। নিখোঁজ সংবাদ কিশলয় আদর্শ শিক্ষা নিকেতন এর ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন

টেকনাফে গরুর মাংসের কেজি ১০০০ টাকা, তদারকি নেই প্রশাসনের

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৬ এপ্রিল, ২০২৪
  • ১০৬ বার পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদক:

কক্সবাজার টেকনাফে কেজি ৮৫০ থেকে ১০০০ টাকা করে গরুর মাংস বিক্রি করার অভিযোগ ওঠেছে কসাইদের বিরুদ্ধে । অন্যান্য দিন গরুর মাংস ৬৫০ থেকে ৭৫০ টাকা কেজিতে বিক্রি হলেও শবে কদরের বাহানায় মাংস বিক্রি করছে ৮৫০ থেকে ১০০০ টাকায়।
মাংস কেনার সামর্থ না থাকায় অনেকে মাংসের দাম শুনে বাসায় ফিরে গেছেন বলে জানা গেছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ক্রেতাও বেড়ে যায়। দাঁড়াতে হয় লাইনে। মাংস কিনতে গেলে কসাইরা বলে একদাম ৮৫০ টাকা দামাদামি করলে এক হাজার!

শনিবার (৬ এপ্রিল) টেকনাফ পৌরসভাসহ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে মাংসের বাজারে একই চিত্র দেখা গেছে।

সোহেল রানা বাপ্পি নামের হ্নীলার একজন ক্রেতা জানান,আবু ছিদ্দিকের দোকান থেকে ৮০০ টাকা করে আমি গরুর মাংস কিনেছি। দাম গরীবের নাগালের বাহিরে যেন দেখার কেউ নেই। প্রথম গেছি বলেই একটু কম পাইছি এখন আরো বেড়েছে।

সাধারণ মানুষের অভিযোগ,উপজেলা প্রশাসনের উদাসীনতার সুযোগে কসাইগণ এত উচ্চ দামে মাংস বিক্রি করার সুযোগ পেয়েছে। টেকনাফে মাংসের বাজারে ভোক্তা অধিকার বা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সঠিকভাবে মনিটরিং করছেন না বলে অভিযোগ ওঠেছে।
হ্নীলা মাংসের দোকানের সামনে দাঁড়ানো কয়েকজন ব্যক্তি জানান,সকাল থেকে চড়াদামে মাংস বিক্রি হচ্ছে। মাংসের বাজারে কারো নজরদারি নেই। সর্বনিম্ন ৮৫০ টাকা হলেও প্রকারভেদে ১০০০ টাকা দাম নিচ্ছে। বিশেষ করে রোহিঙ্গাদের চাহিদার কারণে কসাইরা মাংসের দাম অতিরিক্ত নিচ্ছে বলে মন্তব্য করেন সচেতন মহল।

কক্সবাজার সিটি কলেজের প্রভাষক ও স্থানীয় নাগরিক এহসান উদ্দিন বলেন,গতকাল আমরা গরু কিনতে চেয়েছিলাম কিন্তু সিন্ডিকেটের কারণে আমাদের গরু বিক্রি করতে চাইনি। ৬০০ টাকা করে মাংস বিক্রি করা কোনো ব্যাপারই না। বাজারে প্রশাসনের কোনো তদারকি নেই বলে জানিয়ে তিনি জানান, প্রশাসন তদারকি করলে অবশ্যই দাম কমে আসতো,তবে বাজারে প্রশাসনের কোনো হস্তক্ষেপ নেই।

এদিকে মাংসের বাজারে দাম বেশি নিচ্ছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করে অনেকে লেখালিখি করেছেন। তবে এসব প্রশাসনের নজরে পড়েনি ।

আলী হোসেন শোভন বলেন, ৯০০টাকায় মাংস কিনেছি। অনেক গরীব মানুষ আধাকেজি মাংসের জন্য দাঁড়িয়ে আছে দোকানে। তবে বাজারে প্রশাসনের কোনো তদারকি নেই বলে জানান তিনি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: আদনান চৌধুরীর মুঠোফোনে কয়েকবার কল দিলেও রিসিভ না করায় বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs