শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০৫:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
২১, ২৩ ও ২৫ জুলাইয়ের পরীক্ষা স্থগিত মহেশখালীতে পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার কক্সবাজারে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ,ভাংচুর অনির্দিষ্টকালের জন্য দেশের সকল ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কুতুবদিয়ার মাছ ধরার ট্রলার ডুবি: মাঝিমাল্লা উদ্ধার মহেশখালীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে গ্যারেজ মালিক মামুনের মৃত্যু মাতারবাড়ীতে ৫শ মেগাওয়াটের সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র করবে ইন্দোনেশিয়া “অভিভাবকহীন সন্তানদের থেকে রাষ্ট্রও যেন মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে” উত্তরণ মডেল স্কুল ও কলেজে কিশোর কিশোরীদের দক্ষতা উন্নয়নে স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে জলবায়ু ন্যায্যতা ও লিঙ্গ ভিত্তিক সহিংসতা বিষয়ে সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত রামুতে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নতুন ভবন ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করলেন হুইপ সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি

উন্নয়ন নয় কক্সবাজারকে পরিকল্পিতভাবেই ধ্বংসের আয়োজন চলছে —বাপা

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২৪৮ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক।

কক্সবাজারের শুকনাছড়িতে বন্যপশুপাখির অভয়ারণ্য হিসেবে পরিচিত ৭০০একর বনভূমি রক্ষায় বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) কক্সাবাজার আঞ্চলিক কমিটির উদ্যোগে সংরক্ষিত বনভূমি লিজ বাতিলের দাবিতে বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। গৃহীত কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে আগামী ১২সেপ্টম্বর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ, লিপলেট, পোস্টার ও মানববন্ধনসহ ব্যাপক কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।
গত শনিবার (০৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় কক্সবাজার পৌরসভার হলরুমে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) কক্সবাজার শহর শাখার সভায় ওই কর্মসূচী ঘোষণা করা হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন বাপা কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি ফজলুল কাদের চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক কলিম উল্লাহ কলিম, সাংগঠনিক সম্পাদক এইচ এম নজরুল ইসলামসহ শহর ও জেলা শাখার অন্যান্য নেতৃবন্দ।
সভায় বক্তারা বলেন, উন্নয়ন নয় কক্সবাজারকে পরিকল্পিত ভাবেই ধ্বংসের আয়োজন চলছে। উন্নয়নের নামে কক্সবাজারের শেষ সম্পদ সমুদ্র সৈকত ও দরিয়া নগর শুকানাছড়ি ৭০০ একর বনভূমি ধ্বংসের মহা আয়োজন চলছে। এই ৭০০ একর সরকারি পাহাড়ি জমি ১ লাখ ১ হাজার ১ টাকার বিনিময়ে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে দেওয়ার সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান বক্তারা।
বক্তারা আরও বলেন, কক্সবাজার কলাতলী শুকনাছড়ির পাহাড়গুলোর অনেক স্থানে সামাজিক বনায়ন রয়েছে। বরাদ্দ পাওয়া ব্যক্তিরা সেখানে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ বৃক্ষরোপণও করেছে। কক্সবাজারের সর্বস্তরের মানুষকে সাথে নিয়ে আন্দোলনের মাধ্যেমে এই চুক্তি বাতিল করতে সরকারকে বাধ্য করা হবে বলে হুশিয়ারী দেওয়া হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs